নূতোন কি আফে

ক্ষমতা বা প্রভাব-প্রতিপত্তি কখনও একলা আসে না। সঙ্গে অনেকটা দায়িত্ব এবং দায়বদ্ধতা নিয়ে আসে। ক্ষমতা বা প্রতিপত্তির বহর যেমন, দায়বদ্ধতার বহরও তেমনই। গণতন্ত্রের পটভূমিকায় একজন সাধারণ নাগরিকের যেটুকু বা যতটা ক্ষমতা বা প্রতিপত্তি রয়েছে, সমাজের বা রাষ্ট্রের প্রতি তাঁর দায়বদ্ধতাও ততটাই। বিশিষ্ট বা বিশিষ্টতর নাগরিক হলে, দায়দায়িত্বের বহরও বিশেষ অবশ্যই। কিন্তু সে কথাটা অনেকেই মনে রাখতে পারেন না। বিশিষ্ট বা গণ্যমান্য হয়ে উঠতে পারলেই, প্রভাবে-যশে সাধারণের চেয়ে একটু উপরে উঠতে পারলেই, আশপাশটাকে একটু জোর করে ভেঙে-গড়ে নিজের পছন্দসই করে নেওয়ার চেষ্টাটা মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে ভিতরে ভিতরে। রাষ্ট্রের প্রতি, সমাজের প্রতি, প্রচলিত ব্যবস্থার প্রতি দায়বদ্ধতার বোধটা তখন ফিকে হয়ে আসে। আর সেই শূন্যস্থানের দখল নেয় ক্ষমতা প্রদর্শনের অনৈতিক তাড়না। আইনের প্রতি শ্রদ্ধাহীন এক আইনজীবীও সেই অনৈতিক তাড়নার শিকার হলেন, ফল ভুগতে হল গুরপ্রীত আর মনিন্দর নামে দুই ফুটফুটে তরুণকে। গুরপ্রীত চিরতরে হারিয়ে গিয়েছেন। মনিন্দর মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা কষছেন হাসপাতালের শয্যায়। কারণ রোহিতকৃষ্ণ মহন্ত নামে এক আইনজীবী সম্প্রতি দুঃস্বপ্ন নামিয়েছিলেন দিল্লির ওই দুই তরুণের জীবনে।


Back